মানব-মস্তিষ্কের ব্যবহার ও উন্নয়ন প্রসংগে অনুকথন

মানব-মস্তিষ্কের ব্যবহার ও উন্নয়ন প্রসংগে অনুকথন

চবি দর্শন বিভাগের একজন আন্ডারগ্রেড ছাত্র প্রশ্ন করেছে:

“Is it true that we use only 10% of our brain? Or it’s just a myth? And is it possible for any human being to use more than 10% of his brain? I don’t know whether it is a philosophical question or not, but I think you would be able to answer it.”

মানব মস্তিষ্কের কতটুকু ব্যবহৃত হয়?

আমরা আমাদের মস্তিষ্কের মাত্র শতকরা দশভাগ ব্যবহার করি – এমন একটা দাবী সঠিকও হতে পারে। ভাগের মাত্রাটা কম-বেশি হতে পারে বটে। এটুকু নিশ্চিত যে, আমরা আমাদের ব্রেইনের খুব অল্প অংশই ব্যবহার করি। এটি নানা রকমের সামাজিক-সাংস্কৃতিক-বুদ্ধিবৃত্তিক কারণে ঘটে থাকে।

মানুষের মেধাবিকাশের শেষ/সীমানা কোথায়?

যেমন, হাজার বছর আগের তুলনায় আমাদের ব্রেইন অনেক বেশি তথ্য প্রক্রিয়াকরণ করে থাকে। অতএব, সে সময়ের তুলনায় আমাদের সময়কালে মানুষের গড়পরতা সিনাপসগুলো অধিকতর সক্রিয় (মস্তিষ্কের স্নায়ুবিক কোষ), কিংবা বলা যায় অধিকতর সংখ্যক স্নায়ুকোষ এখন কাজে লাগছে। ভবিষ্যতে এটি জ্যামিতিক হারে আরো আরো বাড়বে। কোথায় গিয়ে ঠেকবে বলা যায় না।

Constant Gap Theory এবং World of Infinities

এ বিষয়ে আমার তত্ত্ব হলো, ওই যে ক্লাসে Constant Gap Theory (CGT) এর সাথে প্রাসংগিক বিবেচনায় যে কথা বলি, Every point is the cross point of infinity in either direction। এই তত্ত্ব অনুসারে আমাদের মস্তিষ্কের ক্ষমতাও অসীম।

অসীম এই সূত্রে যে, there are ‘small infinity’ and ‘bigger infinity’, countlessly.

ফিলোসফির কাজ কী?

এসব কথা কেমন যেন বিদঘুটে bizare মনে হয়। তাই না? আসলে বাস্তবতাকে আমরা যতটা মসৃণ মনে করি, তা ততধিক উল্টাপাল্টা-গোলমেলে। ফিলোসফি এই অন্তর্গত সুসাঞ্জস্যতা এবং/কিংবা অসামঞ্জস্যতাকে এক্সপ্লোর করার চেষ্টা করে।

ফেসবুকে প্রথম প্রকাশিত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *