ধর্ম কি বিশ্বাস বা জ্ঞান, নাকি ধারণা?

একজন প্রশ্ন করেছেন, ধর্ম কি বিশ্বাস বা জ্ঞান, নাকি ধারণা?

উত্তর:
‘ধর্ম’ নামের কোনো কিছু আদতে ‘বিশ্বাস’ বা ‘জ্ঞান’ বা ‘ধারণা’র কোনো একটা হবে কিনা, অথবা কোনটি হবে? এ ধরনের কোনো প্রশ্নের পূর্বানুমান (premise) হচ্ছে, ‘বিশ্বাস’ ‘জ্ঞান’ ও ‘ধারণা’কে সর্বাবস্থাতেই আলাদা আলাদা বিষয় (notion) হিসাবে বিবেচনা করা। অতএব, মূল প্রশ্নটির সম্ভাব্য কোনো উত্তরের যথার্থতা নির্ভর করছে সংশ্লিষ্ট পূর্বানুমান বা পূর্বানুমান-সমষ্টির সঠিক হওয়ার ওপর।

‘বিশ্বাস’, ‘জ্ঞান’ ও ‘ধারণা’ এক অর্থে, জ্ঞানের উপরি-কাঠামো বিবেচনায়, আরো সরলভাবে বললে, লোকজনের সাদামাটা বুঝ-জ্ঞানে এগুলো আলাদা আলাদা বিষয়। সেক্ষেত্রে, ‘জ্ঞান’ ই প্রাধান্য পাবে। অন্য অর্থে, অর্থাৎ জ্ঞানের স্বরূপগত অর্থে (nature of knowledge) সব জ্ঞানই মূলত: বিশ্বাস, যদিও সব বিশ্বাস জ্ঞান নয়।

মহামতি প্লাটোর বরাতে এটি বলা হয় যে, জ্ঞান হলো যাচাইযোগ্য সত্য বিশ্বাস। যদিও এই সূত্রের (JTB=K) বিরুদ্ধে গ্যাটিয়ারের একটি ‘ক্যাচাল’ নিয়ে বিংশ শতাব্দীর মাঝামাঝি থেকে জ্ঞানতাত্ত্বিকরা বেদিশা অবস্থায় আছেন ….

২ comments

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল অ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত ঘরগুলো পূরণ করা আবশ্যক।