ইসলামী জ্ঞানতত্ত্বের রূপরেখা

“যে বিষয়ে তোমার কোনো জ্ঞান নেই, (অযথা) তার পেছনে পড়ো না; কেননা কেয়ামতের দিন কান, চোখ ও অন্তর, এ সব কয়টির (ব্যবহার) সম্পর্কে তাকে জিজ্ঞেস করা হবে।” – সূরা বনী ইসরাইল, আয়াত-৩৬

একজনের এই পোস্টের উত্তরে আমার মন্তব্য: এতে দেখা যাচ্ছে, empiricism বনাম rationalism এর পাশ্চাত্য বাইনারিকে অস্বীকার করা হয়েছে। Islamic epistemology is indeed comprehensive, not dichotic.

পোস্টদাতার উত্তর: জ্বী। একজন মানুষের পক্ষে কতটুকু অভিজ্ঞতা অর্জনই বা সম্ভব? আর সেই অর্জিত অভিজ্ঞতার মধ্যেও তো মানবীয় দূর্বলতা, ভুল আর পার্শিয়ালিটি থাকে। আর অবশ্যই, এক জায়গায় যা সত্য তা আরেক জায়গায় মিথ্যা হলে সেটা মানুষের অভিজ্ঞতা আর যুক্তির সীমাবদ্ধতা ও ফল্টকেই প্রমান করে।।

আমার প্রতিমন্তব্য: হ্যাঁ, মানুষের ভুল ও দুর্বলতা থাকে। তারমানে এই নয়, মানুষ, মানবীয় ক্ষমতার বাইরে গিয়ে জ্ঞান অর্জন বা ধারন করবে। মানুষ মানুষের মতো করেই জ্ঞান অর্জন করবে। তাতে করে সে প্রাথমিকভাবে অভিজ্ঞতার ওপর নির্ভর করবে। এর উচ্চতর পর্যায়ে সে বুদ্ধির ওপর নির্ভর করবে। তারও উচ্চতর পর্যায়ে সে স্বজ্ঞার ওপর নির্ভর করবে। এরও উচ্চতর তথা সর্বোচ্চ পর্যায়ের জ্ঞান হচ্ছে প্রত্যাদেশ বা ওহীর জ্ঞান।

ওহীর জ্ঞানের ওপর যখন সে নির্ভর করে তখন সে নিজের অভিজ্ঞতা,বুদ্ধি ও স্বজ্ঞার জ্ঞানকে নাকচ করে না। বরং সে প্রত্যাদেশের মাধ্যমে এ’সব মানবীয় উৎসের সীমাবদ্ধতাগুলোকে কাটিয়ে উঠে। সংশোধন করে। এই অর্থে, ইসলামী জ্ঞানতত্ত্ব ক্রমসোপানমূলক বা hierarchical।

এর তুলনায় পাশ্চাত্য জ্ঞানতত্ত্ব সমতলধর্মী বা horizontal। তারা ডিবেট করে, অভিজ্ঞতা ভালো, নাকি বুদ্ধি ভালো? অথচ, এ ধরনের সাদা-কালো টাইপের প্রশ্ন তোলাটাই ভুল। জ্ঞান সাধারণত অভিজ্ঞতা প্রসূত। কিছু কিছু মৌলিক জ্ঞান আমরা অভিজ্ঞতা হতে পাই না। বরং ‘অভিজ্ঞতা’ অভিজ্ঞতা হয়ে উঠে কিছু মৌলিক পূর্বধারণা হতে। যাকে আমরা বুদ্ধি বলি।

বুদ্ধির মৌলিক কাঠামো দেয়া থাকে। চর্চার মাধ্যমে একে উন্নত ও পরিশীলিত করা যায়।

আবার বুদ্ধির স্বরূপ জানতে গেলে আমরা এর কোনো অনুসন্ধানযোগ্য উৎস খুঁজে পাই না। তারমানে, বুদ্ধিটা কোত্থেকে এসেছে – এই প্রশ্নের কোনো ‘সদুত্তর’পাই না। তখন আমরা একে স্বজ্ঞা হিসাবে চালিয়ে দেই। প্রসংগত উল্লেখ্য, যে জ্ঞানের কোনো দৃশ্যমান উৎস খুঁজে পাওয়া যায় না। অথচ, যা অত্যন্ত প্রাঞ্জল ও স্পষ্ট, তাকে আমরা স্বজ্ঞাত জ্ঞান হিসাবে বলে থাকি।

Intuitive knowledge is direct knowledge. Revelation is the higher form of intuition.

মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক

সহযোগী অধ্যাপক, দর্শন বিভাগ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় | পরিচালক, সমাজ ও সংস্কৃতি অধ্যয়ন কেন্দ্র
লেখকের অন্যান্য লেখা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *